January 22, 2022, 8:39 pm

দৈনিক পদ্মা সংবাদ এর পরিবারের পক্ষ থেকে সকলকে জানাই নতুন বছরের শুভেচ্ছা

বিদায়… ২০২১ পদ্মা সংবাদ এর পক্ষ থেকে আমি
আব্দুর রহমান অনিক সম্পাদক ও প্রকাশক হিসাবে জানাই নতুন বছরের শুভেচ্ছা।

নতুন বছর প্রত্যেকের জীবনে বয়ে আনুক অনাবিল সুখ ও শান্তি।

আতশবাজির ধোঁয়ায় আচ্ছন্ন রাতের আকাশ, ফানুষ গুলো যেনো নৈশ প্রহরীর ন্যায় ছুটে চলছে কুয়াশাচ্ছন্ন ধোঁয়াটে আকাশে দিগ্বিদিক… আলো-আঁধারিতে শহর নগর মুখরিত; কেউবা বাড়ির ছাদে, বেলকুনিতে,
খোলা আকাশের নীচে রাস্তায়- অবস্থানরত!
করোনা লকডাউনে জনজীবন অনেকটাই হয়ে পড়েছিল স্থবির-বিগত দুই বছর যাবত, বিবাহ, জন্মবার্ষিকী অন্যান্য উৎসব গুলো এমনকি ধর্মীয় উৎসবও কেটেছে সাদামাটাভাবে! জীবন থেকে বিদায় নিয়েছিল স্বাভাবিকতা; জনসাধারণের এত বাঁধ ভাঙ্গা উচ্ছ্বাস প্রকাশ অনেকটা খাঁচা থেকে পাখি ছাড়া পাবার সদৃশ!

ব্যস্ত নাগরিক জীবন- ইন্টারনেটের কল্যানে গ্রাম পাড়া-মহল্লা গ্রাম নেই আর আগের মত নিরব নির্জন অদ্ভুতুড়ে! নতুন বছরের আগমনী বার্তা পৌঁছাতে গণমাধ্যম গুলো সরব ফেসবুক- মেসেঞ্জার টুইটার!
পুরাতন কে বিদায় দিয়ে নতুন আসে আশা-আকাঙ্ক্ষা সম্ভাবনা নিয়ে নতুন বছর। শুধু নিজের কথা ভাবতে ভাবতে মানুষ এখন অনেকটাই স্বার্থপর হয়ে উঠেছে! কিন্তু আজ থেকে মনে মনে আসুন শপথ গ্রহণ করি ক্ষণস্থায়ী জীবনটা নিজের ইচ্ছামত সাজাবার প্রয়াসে ব্যস্ত হয়ে না পড়ে- শুধু নিজেকে নিয়ে না ভেবে মানুষ হিসাবে একজন মানুষের প্রতি যতটুকু সাধ্য দায়িত্ব কর্তব্য পালন করি। রাস্তা থেকে একটি কলার ছোকলা ডাস্টবিনে ফেলে ও হতে পারে উপকার অথবা কাটা সরিয়ে, একটি বাঁশের সাঁকো হলেও, অথবা হতে পারে একটি টিউবওয়েল বসাতে সাহায্য করে অথবা তীব্র গরমে একটি ফ্যান উপহার দিয়ে, টিউবওয়েল বসানোর কাজে সাহায্য করে, এক বেলা কাউকে খেতে দিয়ে একটি পরনের কাপড় দিয়ে, হতে পারে শীতবস্ত্র বিতরণ করে কোন বৃদ্ধ ও অসহায় মানুষের সেটাই হতে পারে তীব্র শীতে চরম পাওয়া!

কতভাবেই তো মানুষকে সাহায্য করা যায়। নিজের নিজের করে সমাজ ও দেশের কথা যেন ভুলে না যাই আমরা সর্বসাকুল্যে; অথচ মানুষ সামাজিক জীব মিলেমিশে সে সমাজবদ্ধ হয়ে প্রয়োজনে- অপ্রয়োজনে একে অপরের সান্নিধ্যে থাকতে চাই। কিন্তু এখন মানুষ নিজের পরিবারকে নিয়ে আলাদা হয়ে থাকতে চায় ধীরে ধীরে একানবর্তী পরিবার গুলো হারিয়ে যাচ্ছে ফলে মানুষ একা হয়ে পড়ছে। স্বার্থপরতা এত চরমে পৌঁছেছে যে সামনে খুন হতে দেখলেও কেউ সহজে এগিয়ে আসতে চায় না। কেউ কোনো বিপদে পড়লে পাশে এসে দাঁড়াতে চায় না।বরং দাঁড়িয়ে দাঁড়িয়ে ভিডিও করে শেয়ার করে উচ্ছ্বসিত হয়।

অবস্থাদৃষ্টে একটি মানুষের জীবনের মূল্য পশু পাখির চেয়েও কম।প্রথমে বিপদের কথা ভেবে এবং নিজের লাভের কথা ভেবে মানুষ দূরে সরে যায়। কিন্তু একথা মানুষ ভেবে দেখেনা প্রত্যেকে আমরা যদি প্রত্যেকের তরে এগিয়ে আসি তাহলে নিজের কষ্টের বোঝা শুধুমাত্র নিজেকেই বয়ে বেড়াতে হয় না, নিজের দুর্দিনে পাশে ও কাছে পাওয়া যায় প্রীয়জন বন্ধুবান্ধব এবং মানুষ হিসাবে মানুষকে।

আসুন পুরাতন দ্বিধাদ্বন্দ্ব ভুলে যেয়ে সবাই সবার পাশে দাঁড়াই, মানবতা ও মনুষ্যত্বের বিবেক বোধের জায়গা থেকে সকলেই যার যার অবস্থান থেকে সমাজ ও দেশের পাশে দাঁড়াই। এভাবেই ব্যাক্তি থেকে সমাজ, সমাজ থেকে দেশ উন্নয়নের উৎকর্ষে সমৃদ্ধ হবে বাংলাদেশ ইনশাআল্লাহ। দেশ ও বিশ্ব মানবতার হোক জয়! আল্লাহ হাফেজ। আসসালামু আলাইকুম।
২০২২

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

     এই ক্যাটাগরির আরো সংবাদ:
BengaliEnglish